চৌদ্দগ্রামে গৃহবধূ পলায়নের ঘটনায় এখনো ধরা পড়েনি অভিযুক্তরা

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে প্রেমের টানে ওমান প্রবাসী
সাবেক প্রেমিকের হাত ধরে সৌদি প্রবাসীর স্ত্রী ও এক সন্তানের জননী উম্মে
রোম্মান নিশাত (২১) নামে এক গৃহবধূ পলায়নের ঘটনার এখনো কোন কূল
কিনারা হয়নি। এঘটনায় পলাতক গৃহবধূ নিশাতের শ^াশুড়ি খোদেজা আক্তার
চৌধুরী বাদী হয়ে গত রবিবার (১২ মে) চৌদ্দগ্রাম থানায় একটি অভিযোগ
দাযের করেন। থানা প্রশাসনের নানা তৎপরতায়ও অভিযুক্তদের এখানো ধরা সম্ভব হয়নি
বলে জানা যায়। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, চৌদ্দগ্রাম থানার একটি তদন্ত টিম
কয়েক দফা অভিযুক্ত সাবেক প্রেমিক শামীম ফয়সাল এর বাড়িতে গিয়ে কাউকে
না পেয়ে ব্যর্থ হয়ে ফিরে আসে। এদিকে ঘটনার দুই দিন পর পলাতক গৃহবধূ
নিশাত ‘ফাহমিদা ইসলাম’ নামে একটি ফেসবুক আইডি থেকে লাইভে এসে
নিজেকে নির্দোষ দাবী করে বলেন, সে কারো সহযোগিতা ছাড়াই নিজে নিজে
বাড়ী থেকে পালিয়েছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় যাকে নিয়ে পালানোর কথা বলে গুজব
ছড়ানো হয়েছে তা সম্পূর্ণ মিথ্যা। স্বামীর বাড়ীতে বিভিন্ন অত্যাচার সইতে
না পেরে সে পালিয়েছে বলে ফেসবুক লাইভে এসে জানায়। এসময় তার অবুজ
সন্তানটি তার পাশেই ছিল। তবে, ধারণা করা হচ্ছে, ফেসবুক লাইভে এসে সে
লিখিত বা কারো শিখিয়ে দেওয়া বক্তব্য পাঠ করেছে। এবিষয়ে চৌদ্দগ্রাম থানার
সেকেন্ড অফিসার এসআই নাছির উদ্দীন বলেন, অভিযোগ পাওয়ার পর থেকে
অভিযুক্তদের ধরতে প্রশাসন তৎপর রয়েছে। তারই ধারবাহিকতায় গতকাল (বৃহস্পতিবার,
১৬ মে) রাতেও অভিযুক্তদের বাড়িতে পুলিশের একটি টিম গিয়েছে। এসময় অভিযুক্ত
শামীম ফয়সালের পরিবারের কাউকে পাওয়া যায়নি। তারা ঘটনার পর থেকে পলাতক
রয়েছে। এর আগে গত শুক্রবার (১০ মে) প্রেমের টানে ওমান প্রবাসী সাবেক
প্রেমিকের হাত ধরে পালিয়ে গেছে সৌদি প্রবাসীর স্ত্রী ও এক সন্তানের জননী
উম্মে রোম্মান নিশাত (২১)। নিশাত উপজেলার চিওড়া ইউনিয়নের ছোট
সাতবাড়িয়ার গোলাম কিবরিয়া চৌধুরীর মেয়ে ও পাশ্ববর্তী লালমাই উপজেলার
বেলঘর উত্তর ইউনিয়নের ছোট শরীফপুর গ্রামের হাজী আব্দুল গফুরের পুত্র সৌদি
প্রবাসী খসরুল হায়দার আরিফের স্ত্রী। এ ঘটনায় এলাকায় বেশ চাঞ্চল্যের সৃষ্টি
হয়েছে। পাশাপাশি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও চলছে ব্যাপক ক্রিয়া-
প্রতিক্রিয়া। এ ঘটনায় বর্তমানে দুই পরিবারের মাঝে উত্তেজনাও বিরাজ করছে
বলে জানা যায়। তবে অভিযুক্ত প্রেমিক শামীম ফয়সালের সাথে যোগাযোগ করলে
সে ঘটনার সাথে জড়িত নয় দাবী করে বিদেশে বলে জানায়। স্থানীয় ও অভিযোগ
সূত্রে জানা যায়, চিওড়া ইউনিয়নের কান্দিরপাড় গ্রামের আব্দুল কাদেরের ছেলে
জিএম শামিম ফয়সালের (২৫) সাথে দীর্ঘ ৫ বছরের প্রেমের সম্পর্ক ছিল একই
এলাকার সাতবাড়িয়া গ্রামের গোলাম কিবরিয়ার কন্যা উম্মে রোম্মান নিশাতের।
কিন্তু প্রেমের বিষয়টি শুরু থেকেই উভয়ের পরিবার মেনে নেয়নি। ফলশ্রুতিতে
বিগত ২০১৪ সালের ১৮ই অক্টোবর পাশ্ববর্তী লালমাই উপজেলার বেলঘর উত্তর
ইউনিয়নের ছোট শরীফপুর গ্রামের হাজী আব্দুল গফুরের পুত্র সৌদি প্রবাসী

খসরুল হায়দার আরিফের (নিশাতের ফুফাতো ভাই) সাথে ইসলামী শরীয়াহ্ধসঢ়;
মোতাবেক নিশাতের বিবাহ সম্পন্ন হয়। বিবাহের পরে তাদের সংসার আলোকিত
করে একটি ফুটফুটে কন্যা সন্তানের জন্ম হয়। এবিষয়ে নিশাতের শ^াশুড়ি
খোদেজা আক্তার চৌধুরী জানান, বিবাহের পর থেকেই স্বামী প্রবাসে থাকার
সুযোগে নিশাত পূর্বের প্রেমিক ফয়সালের সাথে সবসময় যোগাযোগ রক্ষা
করতো। তার এই অনৈতিক যোগাযোগের ফলে নানা রকম দুশ্চিন্তায় দিনাতিপাত
করতে হয় আমাদের সকলকে। নিশাতের স্বামী আরিফ জানান, সাবেক প্রেমিকের
সাথে পালিয়ে যাওয়ার পর গত ১১ তারিখ রাতেও নিশাত ও ফয়সালের পরিবারের মধ্যে
গোপন বৈঠক হয়। বৈঠকে ২ দিনের মধ্যে মেয়েকে হাজির করে দিবে বলেও কথা দেয়
ফয়সালের পরিবার। এসময় আরিফ কান্নাজড়িত কন্ঠে বলেন, বউ গেছে তার ভাগ্য
নিয়ে, কিন্তু আমার নিষ্পাপ শিশু সন্তানকে কেন নিল? এসময় তিনি একমাত্র
সন্তানের জন্য কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন এবং সন্তানকে উদ্ধারে দ্রুত প্রশাসনের
সহযোগীতা কামনা করেন।

চট্রগ্রাম-কুমিল্লা,চৌদ্দগ্রাম উপজেলা প্রতিনিধি মোবাইল:০১৮১৯৭৮৬০১২ ইমেইল:fokhruddinemon@gmail.com কুমিল্লা চৌদ্দগ্রাম উপজেলায় ঘটে যাওয়া সকল ঘটনার সঠিক তথ্য দিয়ে আমাদের প্রতিনিধিকে সহযোগিতা করুন প্রয়োজনে:হেডঅফিস মোঃসাকিব হোসেন হেড অব নিউজ আলোকিত নিউজ টিভি ০১৭৬৮১২৭৭০৬/০১৬৪৩০০৯১৫৬

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

০ Comments
scroll to top