সেনবাগে স্কুল ছাত্রীকে যৌন হয়রানি, নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা

ANTV > অপরাধ > সেনবাগে স্কুল ছাত্রীকে যৌন হয়রানি, নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা
সেনবাগে স্কুল ছাত্রীকে যৌন হয়রানি, নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা
মোঃইব্রাহিম  নোয়াখালী প্রতিনিধি
স্কুল ছাত্রীকে যৌন হয়রানি অভিযোগে তার মা ফেরদৌউস আরা বেগম বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে সেনবাগ থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। ঘটনাটি নোয়াখালীর সেনবাগ উপজেলার বীজবাগ ইউপির শ্যামেরগাঁও গ্রামের গফুর মেম্বারের বাড়ীতে রবিবার সকালে ঘটে। সে ঔই বাড়ীর অলি উল্ল্যাহর মেয়ে ও উপজেলার নবীপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্রী ৮ম শ্রেণির ছাত্রী। ছাত্রী চলতি বছর জে.এস.সি পরীক্ষা দিয়েছে।
এজাহার সুত্রে জানাগেছে, গত ১০ নভেম্বর রবিবার সকাল ১০টার সময় উপজেলার নবীপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণির ছাত্রীকে তার বাড়ীতে মা ফেরদৌউস আরা বেগম তাকে পাক ঘরে রেখে পরিবারিক কাজে পাশের বাড়ীতে যায়। তার অনুপুস্থির সুযোগে পাশের ঘরের চাচা শ্বশুর তফজল হক (৫৫) পিছন দিক থেকে এসে ভিকটিমকে প্রথমে তার মায়ের কথা জিগাসা করে। সে তার মা একটি কাজে ঘরের বাহিরে গেছে বলে তাকে বলে। এসময় ভিকটিমকে তফজল হক জড়িয়ে মুখ চেপে ধরে শরিরের স্পর্শকাতর স্থানে হাত দেয়। ভিকটিম এসময় চিৎকার শুরু করে। তার চিৎকার শুনে বাড়ীর রোকসানা বেগম ঘটনাস্থলে এগিয়ে এলে সে দ্রæত পালিয়ে যায়। বিষয়টি সে এলাকার গন্যমান্য কে জানালে তারা সমাজিক ভাবে মিমাংশার আশ্বাসদেয়। বিষয়টি জানাজানি হলে তফজল হকের লোকজন ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে নানা রকম হুমকি দমকি দিতে থাকে। এ ঘটনার রেশ ধরে শনিবার গভীর রাতে ভিকটিমের বসত ঘরের দরজ ভেঙ্গে প্রবেশ করে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে তার বাবা কাতার প্রবাসী অলি উল্ল্যা, তার মা ফৈরদাউস আরা কে আহত কওে সন্ত্রাসীরা ১টি দামী মোবাইল, টেপ, ১টি স্বর্ণনের চেইন, ১ জোড়া কানের দুল লুট করে নিয়ে যায়।এসময় তারা বসত ঘরে ব্যাপক হামলা, ভাংচুর. লুটপাট চালায়। বিষয়টি টের পেয়ে আশ পাশের লোকজন এগিয়ে এলে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। বাড়ীর লোকজন আহতদের উদ্ধার করে সেনবাগ সরকারী হাসপাতালে ভর্তি করে। খবর পেয়ে সকালে এলাকার গন্যমান্য লোকজন ও স্থানিয় বীজবাগ ইউপির চেয়ারম্যান বাকের হোসেন কোম্পানী ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।
এ ঘটনায় গৃহকর্তা অলি উল্ল্যার স্ত্রী ফেরদৌউস আরা বেগম বাদী হয়ে ১লা ডিসেম্বর রাতে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে সেনবাগ থানায় মামলা দায়ের করে। মামলা নং -১।
মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেন সেনবাগ থানার এস আই ও মমলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সাইফুল ইসলাম ।

Leave a Reply